প্রেম একটি স্বর্গীয় বিষয় হলেও এখন এ দেশে এটি কেমন যেন হয়ে আছে একটি ছেলে খেলার মত। পুরো দেশে এখন তরুণ তরুণীদের মধ্যে সব থেকে বেশি যে সমস্যা গুলো দেখা যায় তার মধ্যে একটি বড় সমস্যা হলো এই প্রেমঘটিত সমস্যা। যার ফলে সমাজে বেড়ে চলছে অনেক অসঙ্গতিও। সম্প্রতি এই প্রেম ঘটিত বিষয় নিয়েই রংপুরের তারাগঞ্জে ঘটেছে একটি ঘটনা। নববধূ নিয়ে বাড়িতে ঢুকতেই বাসরঘরে ঢুকে দরজা লাগিয়ে দিলেন প্রেমিকা। পরে বিয়ের দাবিতে অনশন করায় মারধর করে বাড়ি থেকে টেনেহিঁচড়ে বের করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
বর্তমানে ওই প্রেমিকা আ’/হ’/ত হয়ে স্থানী’/য়’/ হা’/স’/পা’তা/লে চিকিৎসাসেবা নিচ্ছেন। এ ঘটনায় বুধবার নি’/র্যা’/তি’/তা প্রেমিকা প্রেমিক মাহমুদুলসহ ৬ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সয়ার ইউনিয়নের ফরিদাবাদ পুঁটিমারী গ্রামের মাস্টার্স পড়ুয়া তরুণীর (২৫) সঙ্গে ফরিদাবাদ ডাক্তারপাড়া গ্রামের প্রভাবশালী মোজাহারুল ইসলামের ছেলে মাহমুদুল হাসানের (২৮) দীর্ঘ ৫ বছর প্রেমের সম্পর্ক।

এরই ফাঁকে প্রেমিক মাহমুদুল হাসান ওই তরুণীকে বিয়ের প্র’/লো’/ভ’/নে একাধিকবার ধ’/র্ষ’/ণ করেন। গত বছর ১৭ অক্টোবর মাহমুদুল হাসান রাত প্রায় দেড়টার দিকে প্রেমিকার বাড়িতে প্রবেশ করেন এবং বিবাহ বিষয়ে কথা আছে- এমন কথা বলে ওই তরুণীকে ঘরের দরজা খুলে দিতে বলেন।

প্রেমিকের মুখে এমন কথা শুনে ওই তরুণী দরজা খুললে মাহমুদুল হাসান তার ঘরে ঢুকে তার পরিবারের লোকজন তাদের বিয়ে দিতে রাজি হয়েছে- এই বলে তরুণীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে সেদিনও জো’/র’/পূ’/ব’/র্ক ধ’/র্ষ’/ণ করলে তার পরিবারের লোকজন ও ওই গ্রামের লোকজন টের পেয়ে মাহমুদুলকে আটক করেন।

পরে স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠকে মাহমুদুলের পিতা মোজাহারুল ইসলাম ভালো দিন দেখে মাহমুদুলের সঙ্গে তার বিয়ে দেবে বলে অঙ্গীকার করে ওই রাতে ছেলেকে বাড়িতে নিয়ে যান। এরপর গত রোববার সাড়ে ১০টার দিকে ওই তরুণী জানতে পারেন যে তার প্রেমিক মাহমুদুল হাসান বিয়ে করে তার নববধূকে বাড়িতে নিয়ে এসেছেন।

এমন খবর পেয়ে ওই তরণী ওই দিন দুপুরে তার প্রেমিকের বাড়িতে গিয়ে প্রেমিকের ঘরে প্রবেশ করে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। এ ঘটনায় প্রেমিক মাহমুদুল হাসানসহ তার পরিবারের লোকজন তরুণীকে মা’/র’/পি’/ট’/স/হ তার চু’/ল ধরে টে’/নে’/হিঁ’/চ’/ড়ে ঘর থেকে বের করে তাদের বারান্দায় রাখেন।

এ ঘটনায় তরুণীর বাবা চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবগত করলে ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন আজম কিরণের নিদের্শে ঘটনার দিন মধ্যরাতে স্থানীয় ইউপি সদস্য মতিয়ার রহমান, গ্রামপুলিশ জাহান আলী ও নায়েব আলী ঘটনাস্থলে আসেন।

এ সময় নি’/র্যা’/তি’/ত প্রে’/মি’/কা তার প্রেমিকের বাড়ি থেকে বের হতে না চাইলে দ্বিতীয়বার মাহমুদুলের পরিবারের লোকজন তাকে কি’/ল’/ঘু’/ষি মা’/রা’/স’/হ লো’/হা’/র র’/ড় দিয়ে শ’/রী’/রে’/র বিভিন্ন স্থানে আঘাত করার পাশাপাশি তাকে বি’/ব’/স্ত্র করে।

এ সময় সেখান থেকে ওই ত’/রু’/ণীকে অ’/জ্ঞা’/ন অবস্থায় উদ্ধার করে ইউপি সদস্য ও গ্রামপুলিশরা স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন। বুধবার দুপুরে হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, প্র’/চ’/ণ্ড ’ব্য/থা’/য়’/ চিৎকার করছেন তিনি। তিনি প্রতারক প্রেমিক মাহমুদুলের ফাঁ’/সি দাবি করেন।

অভিযুক্ত প্রেমিক মাহমুদুল ইসলাম বলেন, তার সঙ্গে কথা ছিল শুধু প্রেম করব কিন্তু বিয়ে করব না। তিনি বলেন- চকিদারের মেয়েকে বিয়ে করা কি আমার মতো পরিবারের পক্ষে মানায়।

মা’/র’/ধ’/রে’/র বিষয়ে তিনি বলেন, তাকে লো’/হা’/র র’/ড দিয়ে মা’/র’/ধ’/র করা হয়নি; এমনিতেই একটু টানাহেঁচড়া করা হয়েছে।


এ দিকে এই ঘটনার জের ধরে ঐ এলাকা সৃষ্টি হয়েছে একটি চাঞ্চল্যে। বিশেষ করে ঐ ঘটনার সাথে জড়িত প্রধান আসামীকে সবাই নিন্দা জানাচ্ছে এমন একটি নেক্কারজনক ঘটনা ঘটাবার জন্য। এবং সেই সাথে এলাকাবাসিও ঐ ছেলেটির গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে। এ নিয়ে তারাগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে।