দেশের ঢাকার সিটি কর্পোরেশনের দ্বিতীয় পার্ট ঢাকার দক্ষিন সিটি কর্পোরেশন এখন আলোচনা এবং সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনীত হয়েছে। বিশেষ করে সিটির বর্তমান মেয়র এবং সাবেক মেয়রের
মধ্যে চলছে নানা ধরনের বাক্যযুদ্ধ। এরই ধারাবাহিকতায় এবার সাঈদ খোকন বললেন,ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস শত শত কোটি টাকা তার মালিকানাধীন মধুমতি ব্যাংকে হস্তান্তর করেছেন।

সেই সঙ্গে ’তাপসকে বাঘব বোয়াল চিহ্নিত করে’ সাঈদ খোকন বলেন, ’তাপস মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে গলাবাজি করে চলেছেন। আমি তাকে বলব, রাঘব বোয়ালের মুখে চুনোপুটির গল্প মানায় না।’

শনিবার (০৯ জানুয়ারি) হাইকোর্টের সার্ক ফোয়ারার সামনে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। ডিএসসিসি কর্তৃক অবৈধভাবে দোকানপাট উচ্ছেদের প্রতিবাদ ও ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

তিনি বলেন, বিভিন্ন ব্যক্তি মালিকানায় তাপস এ টাকা ব্যাংকে হস্তান্তর করেছেন। ডিএসসিসির মেয়র থাকা অবস্থায় এ টাকা হস্তান্তর করায় তার আর মেয়র পদে থাকার যোগ্যতা নেই। প্রশাসনকে দুর্নীতিমুক্ত করার যে আওয়াজ বা বুলি তাপস দিচ্ছেন, আগে তার নিজেকে দুর্নীতিমুক্ত করতে হবে। অর্থাৎ আগে নিজে দুর্নীতিমুক্ত হয়ে দুর্নীতিমুক্ত করার কথা বলুন।

সাঈদ খোকন বলেন, ডিএসসিসি এলাকায় যেসব দোকান উচ্ছেদ করা হয়েছে সেগুলো বৈধ দোকান। সাবেক মেয়র হিসেবে আমাকে এই উচ্ছেদ দেখতে হবে-এটা দুঃখজনক। বৈধ দোকানে বুলডোজারের আঘাত করা হয়েছে।

এ দিকে ঢাকার দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনের অবৈধ সব স্থাপনা উচ্ছেদ করাকে বেশ কটু চোখেই দেখছেন সাঈদ খোকন। এবং সেই সাথে তিনি এটা নিয়ে জানিয়েছেন ধীক্কার। এবং এ সময় যাদের দোকান অন্যায় ভাবে উচ্ছেদ করা হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কাছে তাদের জন্য সাহায্যের আবেদন করেছেন সাবেক এই মেয়র।