রাজধানী ঢাকার দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনের সাবেক এবং বর্তমান মেয়েরর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই চলছে নানা ধরনের বাক্য বিনিময়। বিশেষ করে একে অপরের নামে চালিয়ে যচ্ছেন নানা ধরনের অভিযোগ আনায়ন। এ দিকে দক্ষিণ সিটির সাবেক মেয়রের বক্তব্যকে মানহানিকর উল্লেখ করে এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।
ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, মার্কেট সংক্রান্ত কিছু তথ্য বেরিয়ে এসেছে। সংবাদকর্মীরা সেগুলো অনুসন্ধান করে বের করেছেন। সেখানে বিভিন্নভাবে টাকা লেনদেন হয়েছে। যাদের সাথে টাকা লেনদেন হয়েছে, যারা লেনদেন করেছেন, তারাই অভিযোগ এনেছেন। আমরা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে অথবা আমি ব্যক্তিগতভাবে কোনভাবেই কোন অভিযোগ আনি নাই।

তিনি আরো বলেন, সেখানে যারা লেনদেন করেছে, যারা ব্যবসায়ি দোকানদার অবৈধভাবে সেই জায়গাগুলো দখলে ছিল, তারা অর্থ লেনদেন করেছেন। এখন তিনি পুরো দোষ আমার উপর চাপানোর চেষ্টা করছে। সেটা আমি মনে করি খুবই অনভিপ্রেত। সেটা শুধুমাত্র ব্যক্তিগত আক্রোশের বশবর্তী হয়ে তিনি এই বিষয়গুলো তুলে ধরছেন।

সোমবার ৭ নং ওয়ার্ডের মানিকনগর স্লাইস গেইট ও ৮ নং ওয়ার্ডের গোপীবাগস্থ টিটিপাড়া সেগুনবাগিচা বক্স কালভার্ট এর গোপীপাড়াস্থ টিটিপাড়া আউটলেটে চলমান বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে ডিএসসিসি মেয়র একথা বলেন।

মেয়র বলেন, তিনি অবশ্যই মানহানিকর বক্তব্য দিয়েছেন। আমি তার বক্তব্য শুনে অবাক হয়েছি। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রেক্ষিতে অবশ্যই এটা মানহানিকর হয়েছে। আমি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা অবশ্যই নিতে পারি।

মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস বলেন, ১০ই জানুয়ারি, জাতির পিতার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। এর আগেই ৯ তারিখে আমরা লক্ষ্য করলাম, তিনি ঘটা করে আমার বিরুদ্ধে সভা ডেকে, আমার বিরুদ্ধে বিষোদগার করলেন। আমার কাছে মনে হয় যে, এটা ওনার ব্যক্তিগত আক্রোশের বহিঃপ্রকাশ। ১৭ মে দায়িত্বভার গ্রহণের পর থেকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান আরম্ভ করেছি এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান চলমান থাকবে।

মেয়র তাপস এ সময় আরও বলেন, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের এলাকায় ঢাকায় যেসব খাল, বক্স কালভার্ট রয়েছে-সেগুলো হস্তান্তর প্রক্রিয়া আরম্ভ হয়েছে এবং চলমান রয়েছে। সেই প্রেক্ষিতে, গত পহেলা জানুয়ারি থেকেই আমাদের খালগুলো পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করাসহ কালভার্টগুলো থেকে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম আরম্ভ করেছি। আজকে আমরা মানিকনগর টিটি পাড়া এলাকা পরিদর্শনে এসেছি।

ডিএসসিসি মেয়র এ সময় আক্ষেপ করে বলেন, এর আগে বিভিন্ন ধারণা দেয়া হলেও আসলে সত্যিকার অর্থে গত কয়েক বছর ধরেই এখানে কোনো কাজ হয়নি। বক্স কালভার্টগুলো ও পরিষ্কার করা হয়নি এবং খালগুলোও পরিষ্কার করা হয়নি। যার কারণে দীর্ঘদিনের পুঞ্জিভূত সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে।

এ দিকে সাঈদ খোকনের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে দুটি মান হানীর মামলা করা হয়েছে। যে মামলাটি করেছেন দেশের দুই উকিল। তবে এ মামলা সম্পর্কে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন বর্তমান মেয়র তাপস। এবং সেই সাথে তিনি মামলার বাদিদের এই মামলা তুলে নেবার আহ্বান জানান।