বাংলাদেশে চলচিত্র শিল্পী সমিতি নিয়েই দীর্ঘদিন ধরেই দেশে চলছে একটি বড় মাপের অস্থিরতা। বিশেষ করে চলচিত্র শিল্পী সমিতির দুই জন বড় পদ ধারি ব্যক্তি নিয়ে চারিদিকে শুরু হয়েছে এই আলোচনা সমালোচনা। এ দিকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্মাদক জায়েদ খান তার কৃতকর্মের জন্যই অবাঞ্ছিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী। চলচ্চিত্রের ’স্বার্থ বিরোধী’ কর্মকাণ্ডে কেউ জড়িত জড়িত হলে তার বিরুদ্ধে যে কোন ব্যবস্থা নিলে মৌসুমী একাত্বতা পোষণ করবেন বলেও জানান এ অভিনেত্রী।
চলচ্চিত্র–সংশ্লিষ্ট ১৮টি সংগঠন ঐক্যবদ্ধ হয়ে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানকে বয়কটের ঘোষণা দিয়েছে। গত ১৫ জুলাই বিএফডিসিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

এর বিপরীতে এই বয়কটের প্রতিবাদে গত ১৯ জুলাই এফডিসির জহির রায়হান মিলনায়তনের প্রদর্শন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। সেখানে নেতারা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।


জায়েদ খানকে বয়কটের সঙ্গে একমত পোষণ করে মৌসুমী বলেন, ’চলচ্চিত্রের ১৮টি সংগঠন সম্মিলিতভাবে জায়েদ খানকে চলচ্চিত্রে অবাঞ্ছিত করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, আমি সেই সিদ্ধান্তের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করছি।’

সমিতির নেতা হয়ে জায়েদ খান স্বেচ্ছাচারিতা দেখিয়েছেন জানিয়ে মৌসুমী বলেন, ’শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন শিল্পীর সদস্য পদ ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে স্বেচ্ছাচারিতা দেখিয়েছেন। তার কৃতকর্মের জন্যে তাকে ১৮ সংগঠন চলচ্চিত্রে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে। আমি চলচ্চিত্রের মানুষ হিসেবে এই শিল্প মাধ্যমের সার্বিক উন্নয়নে তাদের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি।’

এ দিকে শিল্পী সমিতির চলতি এই ঝামেলা নিয়ে বেশ হুঙ্কার তুলেছেন দেশের জনপ্রিয় অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল। তিনি শিল্পী সমিতির এই সকল বিষয় মিটিয়ে দেবার জন্য বেশ ঘাম ঝড়াচ্ছেন। এবং এও বলেছেন তিনি থাকতে শিল্পী সমিতি ভাঙার কেউ নাই পৃথিবীতে।