চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে প্রবেশ করে হামলা, ও সাংবাদিকদের মারধরের চেষ্টা অভিযোগে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবী করে হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা।
ভারতের একটি ফোন নাম্বার থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সভাপতি কলিম সরওয়ারের মোবাইল এ ফোন করে সন্ত্রাসীরা হুমকি দিয়ে বলেছে, মামলা প্রত্যাহার এবং গ্রেফতারকৃত হিন্দু যুবকদের ছাড়িয়ে আনার ব্যবস্থা না করলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব পুড়িয়ে দেবে।
চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে লিখিত ভাবে পুলিশকে একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে রাতে।
পুলিশ এবং প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ হুমকি আসার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছেন।
চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ জানান, কলিম ভাইয়ের মোবাইল ফোনে ভারতের সন্ত্রাসী পরিচয় দিয়ে হুমকি দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে গোয়েন্দা পুলিশকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।
সিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার দেবদাস ভট্টাচার্য প্রেসক্লাব সভাপতিকে হুমকি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে রাতে বলেন, প্রেসক্লাব সভাপতি তাকে হুমকি দেয়ার বিষয়টি সন্ধ্যায় আমাকে ফোনে জানালে আমি তাকে একটি লিখিত অভিযোগ পাঠাতে বলি।
তিনি জানিয়েছেন, ভারত থেকে মোবাইল ফোনে হুমকি দিয়েছে। পরে রাতে আমার অফিসে লিখিতভাবে জানিয়েছেন। আমি অফিসের বাইরে থাকায় অভিযোগটি রাতে পড়া হয়নি। তবে আমরা ব্যাপারটি গুরুত্ব সহকারে নিয়েছি। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য গত ৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নগরীর জামালখানস্থ প্রেসক্লাবের সামনে পুরো সড়ক দখল করে সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে ঐক্যবদ্ধ সনাতন সমাজ নামে তথাকথিত একটি সংগঠন।
এসময় যানচলাচলে বিঘ্ন ঘটায় প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ এবং দায়িত্বরত সংবাদ কর্মীরা তাদের এক পাশে সরে কর্মসূচি পালন এবং আটকা পড়া যানবাহন ছেড়ে দিতে বলে। এতে সাংবাদিকদের সাথে মারমুখি আচরণ করেন হিন্দু যুবকরা।
তারা সেখানে থাকা একুশে টেলিভিশনের সাংবাদিক ও সময় টেলিভিশনের সাংবাদিক কমল দাসকে নাজেহাল করলে অন্যান্য সাংবাদিকরা প্রতিবাদ করেন। এতে হিন্দু যুবকরা সাংবাদিকদের উপর চড়াও হয়। পরে তারা লাঠিসোটা নিয়ে প্রেসক্লাবে হামলা চালায়।
এদিকে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে ঐক্যবদ্ধ সনাতন সমাজের উচ্ছৃঙ্খল যুবকদের হামলা, ভাঙচুর, সাংবাদিকদের হত্যাচেষ্টার ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় দায়ের করা মামলা ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টার প্রতিবাদে এবং পরবর্তী করণীয় নির্ধারণে প্রেসক্লাব ও সাংবাদিক ইউনিয়নের যৌথসভা আজ শুক্রবার বিকাল ৩টায় অনুষ্ঠিত হবে।
taza-khobor