রক্ত মানুষের জীবন ধারনের জন্য সব থেকে বেশি জরুরী একটি উপাদান। বলতে গেলে মানুষের শরীরে রক্ত প্রবাহ থাকার কারনেই মানুষ বেচেঁ থাকে। আর এই কারনে সমাজে রক্তদানের গুরুত্ব এবং উপকারিতা সবারই জানা। তবে বিশ্বে এমন কিছু মানুষও আছে যাদের রক্ত এতটাই বিরল তারা বিপদে পড়লেও অনেক সময় করার কিছু থাকে না। তাই সে সব বিষয়ে কিছু না বলে আজ বরং জেনে নেওয়া যাক বিশ্বের ’বিরলতম’ রক্তের গ্রুপের সম্পর্কে। কেন ’বিরলতম’? বিশ্বে মাত্র ৪৩ জনের শরীরেই রয়েছে এই বিশেষ গ্রুপের রক্ত। তাই এই গ্রুপের রক্ত যাদের শরীরে রয়েছে, তারা তাদের মতো মানুষকে বাঁচিয়ে রাখতে নিয়মিত রক্তদান করে থাকেন। আসুন জেনে নেওয়া যাক বিশ্বের ’বিরলতম’ রক্তের গ্রুপ বা গোল্ডেন ব্লাড সম্পর্কে।
যাদের শরীরে নেগেটিভ গ্রুপের রক্ত রয়েছে (যেমন, ও নেগেটিভ (O-), এবি নেগেটিভ (AB-), বি নেগেটিভ (B-) ইত্যাদি), বিপদের সময় তাদের রক্তের প্রয়োজন পড়লে তা খুঁজে পেতে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয় আত্মীয়-পরিজনদের। ’আমেরিকান রেড ক্রস’ জানাচ্ছে, যে সমস্ত গ্রুপের রক্ত প্রতি ১,০০০ জনের মধ্যে ১ জনের শরীরে থাকে, সেগুলোকে ’বিরল’ বলে ব্যাখ্যা করা হয়। ও নেগেটিভ (O-) হল তেমনই একটি ’বিরল’ রক্তের গ্রুপ। কিন্তু বিশ্বের সবচেয়ে ’বিরলতম’ রক্তের গ্রুপ চিকিৎসকদের কাছে এটি ’আরএইচ-নাল’ (Rh-Null) নামে পরিচিত। একে ’গোল্ডেন ব্লাড’ও বলেন অনেকে। বিজ্ঞানীদের মতে, এটিই হল বিশ্বের ’বিরলতম’ গ্রুপের রক্ত।

১৯৬১ সালে প্রথম ’আরএইচ-নাল’ গ্রুপের রক্তের সন্ধান পাওয়া যায়। এই রক্তের আরএইচ সিস্টেমে ৬১ অ্যান্টিজেনের অস্তিত্ব ছিল না। সাধারণত, রক্তের কোষগুলোতে ৩৪২টি অ্যান্টিজেন থাকে। এই অ্যান্টিজেনগুলোর কম্বিনেশনই নির্ধারণ করে কোনও রক্তের গ্রুপ ঠিক কী হবে। এই অ্যান্টিজেনের ভিত্তিতে মানুষের রক্তকে চার ভাগে ভাগ করা হয়। সেগুলো হল, ’এ’, ’বি’, ’এবি’ আর ’ও’। প্রত্যেকটি রক্তের গ্রুপ আবার দু’ভাগে বিভক্ত, ’পজেটিভ’ এবং ’নেগেটিভ’। অর্থাৎ, সব মিলিয়ে মানুষের শরীরে মোট আটটি আলাদা আলাদা গ্রুপের রক্ত পাওয়া যায়। সেগুলো হল, ’এ পজেটিভ’, ’এ নেগেটিভ’, ’বি পজেটিভ’, ’বি নেগেটিভ’, ’ও পজেটিভ’, ’ও নেগেটিভ’, ’এবি পজেটিভ’ ও ’এবি নেগেটিভ’।

বিগত ৫৮ বছরে বিশ্বে মাত্র ৪৩ জন মানুষের মধ্যে এই ’আরএইচ-নাল’ গ্রুপের রক্ত বা ’গোল্ডেন ব্লাড’-এর অস্তিত্বের খোঁজ মিলেছে। অর্থাৎ, প্রতি প্রতি ৬০,০০,০০০ জনের মধ্যে ১ জনের শরীরে রয়েছে এই বিশেষ গ্রুপের রক্ত। এই ৪৩ জনের মধ্যে ৯ জন নিয়মিত রক্ত দান করেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, যাঁদের শরীরে ’আরএইচ-নাল’ গ্রুপের রক্ত রয়েছে, তাঁরা যে কোনও গ্রুপের মানুষকেই রক্ত দিতে পারেন, তবে সবার থেকে রক্ত নিতে পারেন না। তাই চিকিৎসকদের মতে, যাঁদের শরীরে ’আরএইচ-নাল’ গ্রুপের রক্ত রয়েছে, তাঁদের খুব সাবধানে জীবনযাপন করা জরুরি।

বিশ্বে সব থেকে বেশি পরিমানে পাওয়া যায় বি পজেটিভ রক্ত। আর এই গ্রুপের রক্তের মানুষের সংখ্যাই তুলনামুলক ভাবে বেশি এই পৃথিবীতে। আর ওনেগেটিভ রক্ত পুরো এশিয়া মহাদেশের মধ্যে রয়েছে মাত্র ১%। যার ফলে এটিও একটি বিরল রক্ত হিসেবে ধরা হয়।