ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপ-নির্বাচন এবং নতুন যুক্ত হওয়া উত্তর-দক্ষিণের ৩৬ ওয়ার্ডের নির্বাচন পরিচলনার জন্য বাজেট ধরা হয়েছে ১৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে আইনশৃঙ্খলা খাতে বরাদ্দ ৯ কোটি নির্বাচন ব্যবস্থাপনায় বরাদ্দ ৬ কোটি টাকা।
নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সহকারী সচিব মোহাম্মদ এনামুল হক জানান, বছরের শুরুতে এ নির্বাচনের জন্য বরাদ্দ রাখেনি ইসি। কিন্তু নির্বাচন যেহেতু করতেই হবে, তাই বিভিন্ন যায়গায় কাটছাট করে প্রাথমিক ভাবে ডিসিসি নির্বাচনের জন্য ১৫ কোটি টাকা বাজেট ধরা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনের কয়েকদিন আগে আইনশৃঙ্খলা বৈঠকের পর চূড়ান্ত হিসাব দেয়া যাবে। তবে সে সময় ১৫ কোটি থাকবে কিছু টাকা কম-বেশি হতে পারে।

নির্বাচন কর্মকর্তরা জানান, সর্বশেষ ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন পরিচালনা জন্য বাজেট ছিল ৩৫ কোটি টাকা । ঐ নির্বাচনে দুই সিটির মেয়র ও সব ওয়ার্ডে ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে ডিসিসি নির্বাচন এবং গাইবান্দা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উপ-নির্বাচন নিয়ে বৃহস্পতিবার চড়ান্ত বৈঠকে বসবে ইসি। এদিন নির্বাচনগুলোর তারিখ চড়ান্ত করবে। ডিসিসিতে ২৫ ফেব্রুয়ারি এবং দুই সংসদীয় আসনে চলতি বছরের ১৫ মার্চের মধ্যে নির্বাচন করার পরিকল্পনা করছে ইসি।

গত ৩০ নভেম্বর আনিসুল হক মারা যাওয়ার পর ১ ডিসেম্বর মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। সেক্ষেত্রে ৯০ দিনের মধ্যে অর্থাৎ ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ উপ-নির্বাচন করতে হচ্ছে ইসিকে। মেয়র পদ শূন্য ঘোষণা করার গেজেট হাতে পাওয়ার পর নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করেছে ইসি সচিবালয়।

সুত্র: bangla.moralnews24.com

News Page Below Ad