বাঙ্গালীদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে পানের আয়োজন না থাকলে যেন অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয় না। আবার হিন্দু রীতিতে বিভিন্ন পুজা উৎসবে ও বিয়েতে পান যেন বাধ্যতামূলক।
আবার ঘরে ঘরে অনেকে আছেন যাদের পান না খেলে চলেই না। তাদের জন্য রয়েছে সুখবর।
পান খাওয়ার অনেক উপকারিতা রয়েছে। যা সম্পর্কে হয়ত আপ্নারা জানেন না। নিম্নে পানের উপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করা হল-
১. ডায়াবেটিক দূর করে:- পানে যে সকল উপাদান ব্যবহার করা হয় অর্থাৎ সুপারি, চুন, জর্দা ইত্যাদি চিবানোর ফলে আমাদের রক্তের শর্করা সঠিক থাকে। এতে ডায়াবেটিক হবার সম্ভাবন কমে যায়। যাদের ডায়াবেটিকের সমস্যা ইতিমধ্যে আছে তাদেরও দমন হবে।
অবশেষে আবিষ্কার হল ডায়াবেটিসের মহৌষধ, পান খেয়ে সারিয়ে তুলুন ডায়াবেটিস! জেনে নিন কি ভাবে খাবেন।
নিয়মিত সকালে খালি পেটে পান খাবেন , যার রস আপনার ডায়বেটিসের মাত্রাকে নিয়ন্ত্রন করবে …এছাড়া পাণের তেল ব্যবহার করতে পারেন …
২. ওজন কমাতে সাহায্য করে:- যারা ওজন কমাতে ইচ্ছুক তারা পান খেতে পারেন। পান খেলে ওজন পারেনা, অপরদিকে আপনি অনেকক্ষণ না খেয়ে থাকতে পারবেন। ডায়েট এর জন্য পানের চেয়ে ভাল কিছু আপনি পাবেন না।
৩. মাথা ব্যথা দূর করে:- আপনার যদি মাথায় অনেক ব্যথা অনুভূত হয়, তাহলে এক্ষেত্রেও পান আপনাকে সাহায্য করতে পারে। পান পাতা বেটে মাথায় লাগিয়ে রাখুন। এতে আপনার মাথা ঠাণ্ডা হবে এবং ব্যথা দূর হবে।
দক্ষিণ এশিয়ার খুবই জনপ্রিয় একটি খাবারের নাম পান। নানী-দাদীদের অনেকেই অভ্যাস থাকে পেপারাসিয়া পরিবারের অন্তর্ভুক্ত পান পাতা খাওয়ার।
তাই বিভিন্ন স্থানে বাণিজ্যিক ভাবে এর চাষও করা হয়। কিন্তু শুধু মশলা, সুপারি, জর্দা ব্যবহারে খাওয়ার মধ্যেই পান পাতার উপকারিতা শেষ নয়।
পানের রয়েছে কিছু বিস্ময়কর উপকারিতা। আসুন জেনে নেই স্বাস্থ্য সমস্যায় পান পাতার কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যবহার সম্পর্কে।
১। ওজন হ্রাস করতে
পানের রস হজমশক্তি বৃদ্ধি করে এবং অতিরিক্ত পানি, বিষাক্ত পর্দাথ শরীর থেকে বের করে দেয়। শুধু তাই নয় এটি মেটাবলিজম বৃদ্ধি করে থাকে। এর ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে থাকে। আর এই সবকিছু ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে।
২। হজম সমস্যা দূর
পান পাতায় রয়েছে গ্যাস্ট্রো প্রটেকটিভ , অ্যান্টি-ফ্লটুলেন্ট এবং কার্মিনেটিভ এজেন্ট যার কারণে পান চাবানোর সময় মুখে স্যালাইভা তৈরি করে। যা খাবার হজম করতে সাহায্য করে।
৩। জয়েন্টে ব্যথা
পলিফেনাল নামে এক ধরনের অ্যান্টি-ইনফ্লামমেটরি উপাদান রয়েছে পান পাতায়, যা প্রদাহ বা যন্ত্রণা কমাতে দারুন কাজে করে। এইজন্য অনেককে জয়েন্টের ব্যথার জন্য পানের রস সরবারহ করে।
৪। গলা ব্যথা রোধে
পান পাতার অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ইনফ্লামমেটরি উপাদান ঠাণ্ডা এবং ঠাণ্ডাজনিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। পান পাতা এবং মধু মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন এটি গলার ইনফেকশন রোধ করবে।
৫। ক্ষত সারাতে
পান পাতায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এর অক্সিডেটিভ উপাদান ক্ষত দ্রুত সারিয়ে তোলে। ক্ষত স্থানে কিছু পরিমাণ পান পাতার রস লাগিয়ে নিন। এরপর ব্যান্ডেজ করে বেঁধে রাখুন। এভাবে ২-৩দিন থাকুন। দেখবেন ক্ষত সেরে গেছে।
৬। মুখের দুর্গন্ধ দূর
মুখের ভিতরের ব্যাকটেরিয়া মেরে ফেলে মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে পান পাতার বিকল্প নেই। পান পাতা চেবানোর সময় মুখে ভিতর স্যালাইভা উৎপাদন করে যা ওরাল ব্যাক্টেরিয়া রোধ করে এবং পিএইচ লেভেলের ভারসাম্য বজায় রাখে।

News Page Below Ad