রিফাত হত্যাকান্ড এখন সারাদেশের চর্চার বিষয়। সকলেই চায় রিফতের হত্যাকরিদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হোক। রিফাতের পরিবার,মিন্নির পরিবার সর্বোপরি সকল স্তরের মানুষের দাবি একটাই রিফাতের হত্যাকারি নয়ন বন্ড সহ তার সকল সহযোগীর যেব কঠিনতম শাস্তি হয়।সম্প্রতি সাংবাদিক আবুল হাসনাত মিল্টনও তেমনই বিচার চেয়েছিলেন রিফাত হত্যার এবং হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে।পরে তিনি লেখেন আমার ভুল হয়ে গেছে,আমি দু:খিত,আমি ক্ষমাপ্রার্থী।
নিম্মে তার লেখা পাঠকদের উদ্দেশ্যে হুবহু তুলে ধরা হলো:-

আমার ভুল হয়ে গেছে। আমি সকালে উঠে ঘুম জড়ানো চোখে সবকিছু বুঝে ওঠার আগে ভুল করে বরগুনার নৃশংস (পড়ুন সামান্য মারামারি) হত্যাকাণ্ডের খুনিদের ক্রসফায়ার চেয়ে অন্যায় করে ফেলেছি। আমি আসলে খুনিদের আসল পরিচয় জানতাম না বলেই এহেন ভোদাইয়ের মত কাজ করে ফেলেছি।

খুনিদের একজন নয়ন বন্ড, জেমস বন্ডের খালাতো ভাই। আরেকজন হল রিফাত ফরাজী। এই রিফাতের শখ হল মানুষ কোপানো। কয়েক বছর আগে থেকেই সে নিয়মিত মানুষ কোপায়। ২০১৭ সালের জুলাই মাসেও সে এক মাসুম যুবককে কোপাইছিল। কিচ্ছু হয় নাই।

কয়দিন আগে বরগুনায় হাসপাতালে একজন ডাক্তারকে বেদম পেটানো হলো। আমরা বিচার পাবো কী, উল্টো এই রিফাত ফরাজীর নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরাই ডাক্তারের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করলো। যেহেতু ডাক্তারদের বিরূদ্ধে আন্দোলন, সবাই করতালি দিয়ে তাদের অভিনন্দন জানালো।
একের পর অন্যায় করে পার পেয়ে যাওয়া রিফাত ফরাজী ক্রমশ বেপোরোয়া হয়ে উঠেছে। গতকাল প্রকাশ্যে সে রামদা দিয়ে বীরদর্পে মানুষ কুপিয়ে হত্যা করেছে। এমন বীভৎস সে দৃশ্য যে, ভিডিওটা দেখা যায় না। মরে যাওয়া বৃক্ষকেও মানুষ এমন নির্মমভাবে কোপায় না।

কেন সে এমন ঔদ্ধত্য দেখাবে না? সে কী আমাদের মত বো..চো...আমজনতা? সে হল বরগুনার সাবেক এমপি ও বর্তমান জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. দেলোয়ার হোসেনের ভায়রা দুলাল ফরাজীর পুত্র।(Facebook ID of Rifat - https://www.facebook.com/rifat.forazi.5)

এমন প্রভাবশালী পরিবারের বীর সন্ত্রাসী পোলার বিচার চেয়ে কি নিজের কপাল পোড়াবো? তার চেয়ে আসুন আমরা আজ আমাদের এক ডাক্তার নেতার জন্মদিন পালন করি।

শুভ জন্মদিন, লিডার। চিয়ার্স!


প্রসঙ্গত,বুধবার (২৬ জুন) আনুমানিক বেলা ১০/১১টা নাগাদ জেলার সদর এলাকায় অবস্থিত বরগুনা সরকারী কলেজের সামনের জনাকীর্ণ রাস্তায় এই ভয়াবহ হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে। পরে নির্মম এ হত্যাকাণ্ডের নেপথ্য অনুসন্ধানে পাওয়া যায় চাঞ্চল্যকর তথ্য। প্রাপ্ত তথ্যেরভিত্তিতে জানা যায়, নব বিবাহিতা স্ত্রীর প্রেমিক দাবি করা উত্যক্তকারীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদের জেরে এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের শিকার হন রিফাত।