কোলকাতার একটি পুজা অনুষ্ঠানে যোগদান করে সারা দেশে বেশ সমালোচিত হয়েছেন সাকিব আল হাসান। আর এই সমালোচনার মুখে পড়েই নতুন করে আবারো বেশ অস্বস্থির মধ্যে পড়েন তিনি। তবে গতাকল একটি ভিডিও প্রকাশ করে সেখানে এ সব বিষয় নিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি। আর এই ক্ষমা চাওয়া নিয়েও শুরু হয়েছে আরেক সমালোচনা। অনেকেই এটাকে নিচ্ছেন ইতিবাচক হিসেবে আবার অনেকেই এটাকে নিচ্ছেন নেতিবাচক হিসেবে। এবার এ নিয়ে মুখ খুললেন নিয়মিত কলামিষ্ট শওগাত আলী সাগর। পাঠকদের উদ্দেশ্যে তার সেই লেখনি তুলে ধরা হলো হুবহু:-
১. সাকিব একজন খ্যাতিমান ক্রিকেটার- এই তথ্যটা সঠিক নয়, সত্যও নয়। সত্য হচ্ছে- সাকিব একজন মুসলমান। সাকিবকে ঘোষণা দিয়ে বলতে হয়- তিনি একজন \’গর্বিত মুসলমান\’। মানুষ, ক্রিকেটার- এসব ছাপিয়ে সাকিব একজন \’গর্বিত মুসলমান\’- এই পরিচয়টাই বড় এখন। এটাই হচ্ছে প্রিয় বাংলাদেশের বাস্তবতা, শেখ হাসিনার বাংলাদেশের বাস্তবতা।

২. ঘটনার শুরু কলকাতায় সাকিব কালি পূজা উদ্বোধন করেছেন- এমন একটি সংবাদে। একজন সেলিব্রেটি ক্রিকেটার কালি পূজা উদ্বোধন করলে কি ক্ষতি হয়- তা নিয়ে এই বাংলাদেশে আলোচনার সুযোগ নাই। সাকিব আসলেই কালি পূজা উদ্বোধন করেছেন কী না- তা পরিষ্কার করার দায়িত্বও কোনো মিডিয়া বা তার ভক্তরা কেউ জোড়ালোভাবে নেয়নি।



৩. পশ্চিমের খ্রীষ্টানদের দেশে ঈদের মাঠে এমনকি মসজিদের ভেতর অনুষ্ঠিত ঈদের জামাতেও অমুসলিম জনপ্রতিনিধিরা আসেন, এসে নামাজিদের উদ্দেশে বক্তৃতা করেন। জনপ্রতিনিধিদের সেখানে আমন্ত্রণ জানিয়েই আনা হয়। মসজিদের ভেতর ভিন্নধর্মী জনপ্রতিনিধিদের যাওয়া এবং মুসলমানদের ঈদের জামাতে বক্তৃতা করা নিয়ে কোথাও কোনো আপত্তির কথা শোনা যায়নি। সাকিবের হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের পুজা \’উদ্বোধন\’ এর খবর প্রকাশিত হলে সাকিবকে ক্ষমা চাইতে হয়, ব্যাখ্যা দিতে হয়- সেখানে তিনি আসলে কি করেছেন। সাকিবকে প্রতিশ্রুতি দিতে হয়- তিনি আর কখনো এমন কাজ করবেন না। কি চমৎকার একটি দেশ।
৪. কিসের ভয় সাকিবকে এভাবে ক্ষমা চাইতে হয়! সেটি কি মুসলমানদের ক্ষোভের কারণেই! সেটি সত্য হলে আমরা যে ইসলামকে শান্তির ধর্ম বলি, সেই বক্তব্যটি কি প্রশ্নের সম্মুখীন হয়ে যায় না! ঢাকার মিডিয়া তো বলছে, এক যুবক ভিডিও বার্তায় সাকিবকে মে\’/রে\’/ ফেলা\’/র \’/হু\’/ম\’/কি\’/ দিয়েছে।

সাকিবের কালি পূজা উপাখ্যান নিয়ে যতো ক্ষোভ হয়েছে, তাকে প্রাণে মেরে ফেলার ঘোষণার বিরুদ্ধে কি ততোটা প্রবল প্রতিবাদ হয়েছে?

৫. ভিডিও বার্তায় সাকিবকে মেরে ফেলার ঘোষণা দেয়া যুবকটিকে কি গ্রেফতার করা হয়েছে? একজন দেশ সেরা ক্রিকেটারকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়, সেই হুমকিতে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে ক্রিকেটার ক্ষমা চান, আর কখনো এমনকি করবেন না বলে অনেকটা নাকে খত দেয়ার মতোই করেন, অথচ রাষ্ট্র প্রা\’/ণ\’/না\’/শে\’/র হু\’/ম\’/কি দাতাকে কিছুই বলে না! কি চমৎকার ব্যবস্থা!


এ দিকে সাকিবকে হুমকি দেয়া সেই ব্যক্তিকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহীনী। আজ সকালে ফোন কল ট্রাকের মাধ্যমে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর পর থেকেই তিনি রয়েছেন আইনি হেফাজতে। তার বিরুদ্ধে পরবর্তিতে নেয়া হবে আইনি ব্যবস্থা।