বাংলাদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বদের মধ্যে অন্যতম বিশিষ্ট এবং জনপ্রিয় একজন ব্যক্তিত্বে পরিনিত হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক জনাব ড. আসিফ নজরুল। দেশের নানা ধরনের সব সমসাময়িক বিষয় নিয়ে কথা বলে থাকেন তিনি।সম্প্রতি তার একজন সচিব বন্ধু নিয়ে দিয়েছেন একটি স্ট্যাটাস।পাঠকদের উদ্দেশ্যে তার সেই লেখনি তুলে ধরা হলো হুবহু:-
আমার একজন বন্ধু সচিব পর্যায়ে প্রমোশন পেল সম্প্রতি। আমাকে অন্য একটা নম্বর থেকে ফোন করল। জরুরী প্রয়োজন থাকলে সেই নম্বরে (হোয়াটস্-আপ) ফোন করতে বলল, আর অনুরোধ করল তার নম্বরটায় ফোন না করতে।
বলল; বুঝিস-ই তো দোস্ত!
আমি বুঝিনি! মাঝে একবার মনে হয়েছিল তার সাথে আমার ঘনিষ্ঠ কোন ছবি দিয়ে অভিনন্দন জানাই তার প্রমোশনের জন্য।
তাহলে কি তাকে তার পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হতো?
আসিফ নজরুলের সাথে অতীত ঘনিষ্ঠতার জন্য শো-কজ করা হতো?
এতোটা নিশ্চয়ই হতো না, সামান্য দুএকটা কথা তাকে শুনতে হতো হয়তো । কিন্তু এমন সামান্য ভয়েই সে লুকিয়ে ফেললো তার কয়েক দশকের অতি ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্ব!
আমি ভাবি, এতো অল্পেই ভয় পায়, তাহলে বড় ভয়ে না জানি কতো অন্যায় নিদ্বিধায় করতে পারে আমার বন্ধু, তার মতো সচিব, প্রায় সচিব বা বড় সচিবরা?
সবাই অবশ্য আমার এই বন্ধুটার মতো না। সরকারের উচ্চপদে যেসব বন্ধু/ ঘনিষ্ঠজনরা আছেন তাদের কেউ কেউ এখনো সামাজিক যোগাযোগটা রাখেন।
আমার ধারনা ভয় পায় তারাই যাদের কোন না কোন সমস্যা (যোগ্যতার ঘাটতি, অতি উচ্চাকাঙ্ঘা বা নৈতিক) আছে।
কি পরাধীন জীবন এদের!

ড. আসিফ নজরুল বাংলাদেশের বর্তমান সময়ে স্যোশাল মিডিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় একটি মুখ। দেশের নানা ধরনের নানা সময়ের সব পরিস্থিতি নিয়ে তিনি সব সময়ই আলোচনা করে থাকেন। আর এই কারনে পাঠক মহলে রয়েছে তার বেশ সুনামও।