সারা বিশ্বে বাড়ছে পরিবেশ দূষন। আর এই পরিবেশ দূষনের অন্যতম কারন হচ্ছে যানবহনের নির্গত কালো ধোয়া। বিশ্বের বহু দেশ চাইছে জ্বালানীমুক্ত যানবহন ব্যবহার করতে। তার ধারাবাহিকতায় কাজ শুরু করেছে চীন জাপান এর মত বড় বড় উন্নত দেশগুলো। বাংলাদেশেও এবার শুরু হয়েছে এই প্রক্রিয়া। আর এই প্রক্রিয়া শুরু করেছে অ্যাডভান্স ডায়নামিকস লিমিটেড (এডিএল)। দূষণমুক্ত পরিবহন এবং জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে, দেশে তৈরি নিজেদের প্রথম বিদ্যুৎ ও সৌরবিদ্যুৎচালিত গাড়ি নিয়ে বাংলাদেশে ২ হাজার কিলোমিটার সফর করেছে অ্যাডভান্স ডায়নামিকস লিমিটেডের (এডিএল) মোটর স্পোর্টস ব্রান্ড টিম টাঙ্গুয়ার রেসিং।
আগামী বছরে জীবাশ্ম জ্বালানিবিহীন গাড়ির প্রতিযোগিতায় টাঙ্গুয়ার রেসিং টিম এইটটি ডে রেস-এ অংশ নেবে।

অ্যাডভান্স ডায়নামিকস লিমিটেডের (এডিএল) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১৫ জুলাই দেশীয় বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান অ্যাডভান্স ডায়নামিকস লিমিটেড দেশে তৈরি নিজেদের প্রথম সৌরবিদ্যুৎ চালিত গাড়ি নিয়ে টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পর্যন্ত ২০০০ কিলোমিটার ভ্রমণ করে। অ্যাডভান্স ডায়নামিকস লিমিটেডের মোটর স্পোর্টস ব্রান্ড টাঙ্গুয়ার রেসিং টিম এ সফর পরিচালনা করে। বিশ্ব পরিচ্ছন্ন ও কার্বনমুক্ত পরিবহন ব্যবস্থার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশও অসামান্য এক অর্জন দিয়ে এ বহরে যোগ দিল।

দেশের মাটিতে সৌরবিদ্যুৎ চালিত কোনো গাড়ি নিয়ে এমন আয়োজন এই প্রথম। দেশের বিভিন্ন বিখ্যাত স্থানে স্বল্প বিরতি দিয়ে ২১ দিনের এই ভ্রমণে ২২টি শহরে যায় টাঙ্গুয়ার রেসিং টিম। এ সময় আটটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীদের এই সৌরবিদ্যুৎ চালিত গাড়ির প্রযুক্তি প্রদর্শন ও বিস্তারিত তথ্য প্রদানের মাধ্যমে করে তারা দূষণ মুক্ত পরিষ্কার পরিবহন, কার্বন নিঃসরণ দূরীকরণ, জলবায়ু রক্ষা এবং পরিবেশ সংরক্ষণ সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি করে।

সৌরবিদ্যুৎ চালিত গাড়িটি একটি এসইউভি গাড়ি, এর বেইস হিসাবে ব্যবহার করে কিন্তু পেট্রল, ডিজেল বা সিএনজি পরিবর্তে এটি কেবল বিদ্যুৎ সঞ্চালন দ্বারা পরিচালিত হয়। ৩০ কিলোওয়াটের একটি শক্তিশালী বৈদ্যুতিক মোটর, ৩৬ কিলোওয়াট ঘণ্টা লিড অ্যাসিড ব্যাটারি প্যাক, ৩৫০ ওয়াট সোলার প্যানেল এবং একটি ২.২ কিলোওয়াটের বিল্ট ইন অত্যাধুনিক চার্জার দ্বারা ই. ভি. র পাওয়ার সরবরাহ করা হয়।

গাড়িটি প্রতিবার পূর্ণ চার্জে প্রতি ঘণ্টায় ৬০ কিলোমিটার গতিতে, সৌর-বিদ্যুৎসহ ১৮০ কিলোমিটার চলাচল করতে পারে।

এডিএল জানিয়েছে, গাড়িটি বিক্রির জন্য নয়। এটি রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের কাজে ব্যবহার করে সময়ের সঙ্গে আরও উন্নত করার জন্য একটি প্রোটোটাইপ হিসেবে ব্যবহার করা হবে।

অ্যাডভান্স ডায়নামিকস লিমিটেড ও টাঙ্গুয়ার রেসিং টিমের প্রতিষ্ঠাতা মো. তৌসিফ আনোয়ার ও গোপাল কুমার মহত চালিত গাড়িটি গ্রিড বিদ্যুতের ৫০২.৯০ কিলোওয়াট ঘণ্টা ব্যবহার করে এবং পুরো সফরে ৩১.৬২ কিলোওয়াট ঘণ্টা সৌরশক্তি উৎপন্ন করে। ২ হাজার ১০০ কিলোমিটারের জন্য মোট খরচ হয়েছে ৪৭১.২৮ কিলোওয়াট ঘণ্টা। অ্যাডভান্সড ডায়নামিকস লিমিটেড দেশে দূষণ মুক্ত, পরিবেশবান্ধব পরিবহন ব্যবস্থার বিকাশ ও উৎপাদন করতে ভবিষ্যতে একই ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

আগামী বছর বাংলাদেশ থেকে জীবাশ্ম জ্বালানিবিহীন গাড়ির প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে টাঙ্গুয়ার রেসিং টিম। দেশের প্রথম গাড়ি হিসেবে এইটটি ডে রেস (80 Day Race) নামক বৈদ্যুতিক গাড়ি পরিভ্রমণের আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে বাংলাদেশের পতাকা নিয়ে। যেখানে তারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্সসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শক্তিশালী প্রতিযোগীদের সঙ্গে।


উল্লেখ্য,এই আয়জনের সঙ্গে সার্বিক সহযোগিতায় ছিল পেড্রোলো এন কে লিমিটেড হাঙ্গরিনাকি. কম, বোহু বাংলাদেশ, মোর, ড্রিমারস অ্যান্ড ডুয়ারস, ফেব ল্যাব ঢাকা এবং কোনো টেকনোলজিসহ বিভিন্ন সংগঠন ও বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান।