বাংলাদেশের রাজনিতীতে ড.কামাল বড় একটি নাম। বলতে গেলে বাংলাদেশের শুরুর ইতিহাস থেকেই তিনি বাংলাদেশের সাথে জড়িত। একটা সময় ছিলেন আওয়ামীলীগের সঙ্গেই। তবে আওয়ামীলীগের সঙ্গ ছেড়ে দিয়েছেন অনেক দিন আগেই। গড়েছেন ঐক্যফ্রন্ট নামের নিজের একটি দল।যার সহযোগী দল হিসেবে আছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি দল বিএনপি। তবে ড.কামাল সরকারের বিপক্ষেই সব থেকে বেশি কথা বলে থাকেন। সম্প্রতি তিনি সরকারকে বেশ একটা নেতিবাচক মন্তব্য করেন। যা নিয়ে এখনো চলছে তুমুল সমালোচনা। এবার এ নিয়ে কথা বললেন বাংলাদেশে কৃষিমন্ত্রী জনাব আব্দুর রাজ্জাক।


সরকারকে ফেলে দেয়া নিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামালের বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন লাথি মেরে এই সরকারের পতন ঘটাতে চান; অথচ বঙ্গবন্ধুর জন্যই তিনি দুবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। শনিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকালে জামালপুর জিলা স্কুল মাঠে মুজিববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে এ কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী।

বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে বলে মন্তব্য করে আবদুর রাজ্জাক বলেন, এসব ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। ষড়যন্ত্রকারীরা ’৭৫-এ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করেছিলো সেই তারা এখনও নানা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে।


বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ওই সময়টায় দুঃশাসনে ছেয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। দুর্নীতি-লুটপাট ছিল সর্বত্র। ওইসব দুর্নীতির কারণে বিএনপি নেত্রী আজ জেলে।



প্রসঙ্গত, প্রতিটা রাষ্ট্র পরিচালনা করতে প্রয়োজন পড়ে সংবিধানের। আর বাংলাদেশ স্বাধীন হবার পর স্বাধীন রাষ্ট্র পরিচালনা করার জন্য সংবিধানের ব্যাপক প্রয়োজন পরিলক্ষিত হয়। এ সময় গঠন করা হয় ৩৪ সদস্যের একটি টিম। যারা লিখবে বাংলাদেশের সংবিধান। আর এই টিমের প্রধান হিসেবে ছিলেন ড.কামাল। বলতে গেলে তার হাত ধরেই বাংলাদেশর সংবিধান লেখা হয়েছিলো।