করোনা ভাইরাস বাংলাদেশে হানা দিয়েছে গেল বছর মার্চ মাসের ৮ তারিখে। আর সেই থেকে শুরু দেশে করোনার মহামারি সংক্রমন। প্রায় এক বছর হতে চললো এই করোনার সংক্রমণ এই দেশে। তবে এটা বলাই বাহুল্য করোনা বেশ একটা ক্ষতি করতে পারেনি এ দেশে। আর তাই স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বলেছেন, দেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে বলেই উন্নয়নের চাকা চলমান আছে। করোনা নিয়ন্ত্রণ এমনিতেই হয়নি, এটা কোনো জাদু মন্ত্র বা ম্যাজিক দিয়ে হয়নি, এটার জন্য কাজ করতে হয়েছে। সমালোচনাকারীরা শুধু সমালোচনা করতে পারে। সমালোচনাকে উর্ধ্বে রেখে সঠিক ভাবে কাজ করলে এর সফলতা হবেই। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ আমরা করোনা মোকাবিলায় সক্ষম হয়েছি।
শনিবার মানিকগঞ্জ পৌরসভার মিলনায়তনে পৌরসভার উন্নয়নকল্পে ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা বিষয়ে আলোচানা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিনের জন্য বসে না থেকে গত মে মাস থেকে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। আমরা ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করেছি, পৃথিবীর অনেক উন্নত দেশ এখনও ভ্যাকসিন পায়নি। ভ্যাসসিন দেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের দেশ বিশ্বে ৬ নম্বরে রয়েছে। বর্তমানের দেশে ১৭ কোটি লোকের মধ্যে মাত্র ১৩০০ লোক করোনায় আক্রান্ত রয়েছেন। আমাদের দেশে সুস্থতার হার ৯০ শতাংশ। তিনি বলেন, ভ্যাকসিন নেওয়ার পাশাপাশি আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তবেই আমরা দেশ থেকে করোনা ভাইরাস আরও নিয়ন্ত্রণ করতে পারবো।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আরও বলেন, একটি পৌরসভা হচ্ছে জেলা শহরের ড্রয়ইং রুম। এই ড্রয়ইং রুম সাজানো গোছানো না থাকলে জেলার উন্নয়ন দৃশ্যমান হয় না। মানিকগঞ্জ পৌরসভাকে একটি আধুনিক পৌরসভায় রুপান্তর করতে হলে একটি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করতে হবে। আগামীতে যত উন্নয়ন হবে তা মাস্টার প্ল্যান অনুযায়ী হবে।

পৌর মেয়র রমজান আলীর সভাপতিত্বে কর্মপরিকল্পনা সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক এস.এম ফেরদৌস, পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতানুল আজম খান আপেল, সাংগঠনিক সম্পাদক সুদেব সাহা, মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম ছারোয়ার ছানু, স্থানীয় সরকার বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ফয়জুল হক প্রমুখ।

চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে শুরু করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ। আর সেই থেকে এই করোনা ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বের সারা দেশে। পুরো বিশ্ব হয়ে যায় একেবারেই স্থবির। করোনায় স্তব্ধ হয়ে যায় গোটা বিশ্ব। তবে শেষ পর্যন্ত করোনার ভ্যাকসিন এসেছে বিশ্বে। আর সেই সাথে করোনা নিয়ন্ত্রনে আসতেও শুরু করছে দিনদিন।